Auto Image Slider

দরুদ, সালাম ও মিলাদ একই জিনিস নয়

হযরত রাসুলুল্লাহ্ (সা.) এর জন্যে আল্লাহ্ পাকের দরবারে রহমত প্রার্থনা করার এক প্রকার খাছ দোয়াকে দরুদ শরীফ বলে। শান্তির বাণী সালাম শব্দের দ্বারা পবিত্র কুরআন সুন্নাহ্ মোতাবেক সাহাবাগণের নিয়মে বিশ্বনবী (সা.) কে সালাম পেশ করার নাম হলো সালাম।

মিলাদ বা মাওলুদ হলো আরবি ভাষার একটি শব্দ। যার অর্থ হলো জন্মকাল। এ শব্দটি যদি নবী (সা.) এর সহিত মিলান হয়, তাহলে বাক্য দাঁড়ায় মিলাদুল নবী। যার অর্থ দারায় বিশ্ব নবীর জন্ম কাল। দরুদ ও সালাম পাঠের বিষয়ে মহান আল্লাহ্ পবিত্র কুরআন মজিদে এরশাদ করেন

اِنَّ اللَّهَ وَمَلَائِكَتَهُ يُصَلُّوْنَ عَلَى النَّبِيِّ يَا اَيُّهَا الَّذِيْنَ آمَنُوْا صَلُّوْا عَلَيْهِ وَسَلِّمُوْا تَسْلِيْمًا

নিশ্চয়ই আল্লাহ্ এবং তার ফেরেশতাগণ নবীর উপর দরুদ পাঠ করেন অর্থাৎ (আল্লাহ্ পাক নবীর উপর রহমত নাযিল করেন এবং ফেরেশতাগণ তার জন্য রহমতের দোয়া প্রার্থনা করেন) হে ঈমানদারগণ তোমরাও নবীর প্রতি দরুদ পাঠ করো এবং অধিক পরিমাণ তার প্রতি সালাম পাঠাও। সূরা আহসাব- আয়াত- ৫৬

শুধু কুরআনুল কারিমের এই আয়ত খানাই নয় বরং এ ছাড়াও বিভিন্ন হাদিসে দরুদ ও সালাম পাঠের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। কুরআন ও হাদিসে যে দরুদ ও সালাম পাঠের নির্দেশ আসছে তা নিজে নিজে ব্যক্তিগণ ভাবে পাঠ করতে হয়। সম্মিলিত সুরালু কণ্ঠে নয়।

বর্তমান সমাজে প্রচলিত মিলাদ ও কিয়াম

translator

Leave a Comment